বীর বিক্রম শহীদ লে. অাহসানুল হক ডিগ্রী কলেজ

প্রতিষ্ঠানের ইতিহাস

বগুড়া জেলার অাদমদীঘি উপজেলাধীন সান্তাহার পৌর শহরটি ব্রিটিশ ভারত শাসন অামল হতে ঐতিহ্যবাহী রেলওয়ে  জংশন শহর হিসেবে ব্যাপক পরিচিত। লক্ষাধিক জনসংখ্যা অধ্যুষিত এ শহরে প্রায় ৩০টি কেজি স্কুল , প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় থাকলেও উচ্চশিক্ষার জন্য সান্তাহার সরকারী কলেজ একমাত্র মাধ্যম হওয়ায় অধিক সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী সেখানে ভর্তি হতে পারে না। ফলে এ অঞ্চলের ছেলেমেয়েরা উচ্চ শিক্ষা হতে বর্ঞ্চিত হচ্ছে। সেই জন্য যুগের চাহিদার পরিপ্রেক্ষিতে অত্র এলাকায় উচ্চ শিক্ষা বিস্তারের স্বার্থে ১৯৯৪ সালে সান্তাহার ডাকবাংলো চত্বরে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক এবং সাংস্কৃতিক কর্মীসহ সুধী সমাবেশে সান্তাহারের কৃতি সন্তান বীর মুক্তি যোদ্ধা শহীদ লে. অাহসানুল হক এর নাম স্মরণীয় করে রাখার জন্য তার নামে একটি বেসরকারী কলেজ প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। উচ্চ শিক্ষা বিস্তারের স্বার্থে দলমত নিবির্শেষে সবর্স্তেরর মানুষের অাবেগ ও দাবির প্রেক্ষিতে মহিয়সী বিদানুরাগী শহীদ মাতা বেগম অামেনা খাতুন তার সন্তানের নাম চিরস্মরণীয় থাকবে মর্মে সান্তাহার শহরের কেন্দ্রস্থলে শাইলো রাস্তা সংলগ্ন মনোরম পরিবেশে ৩.৫ একর জমি দান করেন। শহীদ অাহসানুল হক কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য এ সময় এগিয়ে অাসেন মাননীয়  সংসদ সদস্য অালহাজ্ব অাব্দুল মজিদ তালুকদার, সাবেক এম. পি. ও গভর্নর কছিম উদ্দিন আহমেদ , পৌর চেয়ারম্যান গোলাম মোশের্দসহ অাপামর জন সাধারণ।

বতর্মানে কলেজের কমরর্ত শিক্ষক কমর্চারীর সংখ্যা ৫৪ জন। রাজনীতিমুক্ত এ কলেজে উচ্চ  মাধ্যমিক, বি. এম শাখা ও ডিগ্রীর(পাশ) শাখা রয়েছে। বেগম অামেনা খাতুনের চতুর্থ সন্তান এ. কে. এম অাসাদুল হক অত্র কলেজের অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।